মুখ্যমন্ত্রী হতে চাই না, উন্নয়নই কাম্য: রজনীকান্ত

ভারতের দক্ষিণের জনপ্রিয় অভিনেত্রী ও মুখ্যমন্ত্রী জয়ললিতার মৃত্যুর পর শোনা যায়, হয়ত রাজনীতিতে আসবেন রজনীকান্ত। অবশেষে অনেক দিন পরে হলেও এবার সেই জল্পনা সত্য হতে চলেছে।

আগামী বছর তামিলনাড়ুতে বিধানসভা নির্বাচন। ধারণা করা হচ্ছে, তার আগেই নিজের দল ঘোষণা করবেন রজনীকান্ত। তবে তিনি কখনও নিজেকে মুখ্যমন্ত্রীর আসনে দেখতে চান না। সম্প্রতি একটি সংবাদ সংস্থাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এমনটাই জানিয়েছেন ‘থালাইভা’খ্যাত এই তামিল মেগাস্টার।

২০১৭ সালে শোনা গিয়েছিল রজনীকান্ত নাকি একটি রাজনৈতিক দল তৈরি করবেন। কিন্তু তারপর আর কোনো উচ্চবাচ্য নেই। কিছুদিন আগে সংবাদ সংস্থা এএনআই-কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে রজনীকান্ত জানান, ‘সিএএ নিয়ে দেশের মানুষকে ভুল বোঝানো হচ্ছে। এই আইনে দেশের মুসলিমদের কোনও ক্ষতি হবে না। দেশভাগের সময় এরা ভারতে থেকে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। তাদের সিদ্ধান্তকে প্রত্যেক ভারতীয় সম্মান করেন। তাই সিএএ’র জন্য দেশের একজন মুসলিমের কোনও ক্ষতি হলে, আমি সবার আগে রুখে দাঁড়াব।’ একইসঙ্গে তিনি এনপিআর-এর স্বপক্ষেও সরব হন। তখন অনেকেই ভেবেছিলেন হয়তো এবার বিজেপিতে যোগ দেবেন থালাইভা। কিন্তু এদিন সাক্ষাৎকারে সেই জল্পনা নস্যাৎ করে দিলেন অভিনেতা।

সাংবাদিক বৈঠকে রজনীকান্ত জানান, তিনি এবার সত্যিই রাজনীতিতে প্রবেশ করতে চলেছেন। তবে তার দল কবে ঘোষণা করবেন, তা জানা যায়নি। এমনকি দলের নামও জানাননি তিনি। তবে বৈঠকে তিনি স্পষ্ট করে দিয়েছেন, তিনি রাজনৈতিক দল ঘোষণা করলেও মুখ্যমন্ত্রী কোনোদিন হবেন না। তার দল জিতলে অন্য কাউকে তিনি ওই পদের জন্য মনোনীত করবেন। তিনি শুধু তামিলনাড়ুর উন্নতি চান, এর বেশি আর কিছু চায় না তার। এমনটাই জানিয়েছেন থালাইভা।

তিনি আরও জানান, জয়ললিতা ও করুণানিধির পর রাজ্যের রাজনীতিতে একটি শূন্যস্থান তৈরি হয়েছে। সেটি পূরণ করতে শিক্ষিত সমাজকে এগিয়ে আসার বার্তা দিয়েছেন তিনি। দল গঠন করতে তরুণ প্রজন্মকে আহ্বান করেন থালাইভা।